এই আর্টিকেলটি পড়ার পরিবর্তে ভিডিও থেকেও জেনে নিতে পারেন।

  • Topic-Summaryফল সেমিস্টার: ফল সেমিস্টার হলো আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সেরা মৌসুম। অধিকাংশ আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয় এই সেমিস্টারের আগে খালি হয়ে যায়। ফান্ড ও প্রচুর পরিমানে এই সেমিস্টারে খরচ করা হয়। সে কারনে চান্স পাওয়া ও ফান্ড পাওয়ার সম্ভবনা অনেক বেশি থাকে।  আগস্টের শেষের দিকে সাধারণত এই সেমিস্টারের ক্লাশ শুরু হয়। সে কারনে যারা ফল সেমিস্টারের ভর্তি হওয়ার সুযোগ পান তাদের অবশ্যই আগস্টের শুরুদিকে আমেরিকার পথ ধরতে হয়। কিন্তু এখন কথা হলো আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়ে কেনো ফল সেমিস্টারের এতো বেশি ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে থাকে। এর অন্যতম কারন হিসেবে মনে করা হয় এই সময়ের একটু আগে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার জন্য যে ধরণের যোগ্যতা পরীক্ষা দরকার তা অধিকাংশ অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। এই কারনে অনেক বেশি ছাত্র-ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য প্রস্তুত থাকে। উদাহরন হিসেবে যদি আমরা বাংলাদেশকে টেনে আনি তাহলেেএকই ধরণের সময়সূচি দেখতে পাবো। যেমন- বাংলাদেশের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হয় জুন থেকে জুলাই এই সময়ে। এবং সে কারনে বুয়েট ও মেডিকেলের ভর্তি পরীক্ষা ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হয়।

Screenshot_1

  • স্প্রিং সেমিস্টার: আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়ে স্প্রিং সেমিস্টার শুরু হয় জানুয়ারির দিকে। সাধারণত খুব কম সংখ্যাক ছাত্র-ছাত্রী এই সেমিস্টারে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পায়। কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি কার্যক্রমই বন্ধ থাকে। বিশেষ কারন না হলে কোনো প্রফেসর নতুন কোন ছাত্র-ছাত্রী নিতে অনিচ্ছুক থাকে। সে কারনে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রোফাইল খুব বেশি উচু না হলে এই সেমিস্টারের চান্স পাবার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। ফান্ডের পরিমাণ ও অনেক কম থাকে।

Screenshot_1

  • সামার সেমিস্টার: খুব কম সংখ্যাক বিশ্ববিদ্যায় আছে যারা ফল ও স্প্রি সেমিস্টারের মাঝামাঝি সময়ে সামার সেমিস্টার নামে একটি সেমিস্টার অফার করে থাক। তাই এই সেমিস্টারে ফান্ড ও চান্স পাবার সম্ভব কতো খানি কম তা আলাদাভাবে উল্লেখ না করলেও চলে।

Screenshot_1

  • উপরের আলোচনা থেকে একটা বিষয় পরিষ্কারভাবে বোঝা যাচ্ছে ফল সেমিস্টারে ভর্তি হওয়া এবং ফান্ড পাওয়ার সম্ভবনা সবচেয়ে বেশি।

 

Comments

comments