আয়েল্টস পরীক্ষায় দু’ধরণের লেখা লিখতে হয়। যার প্রথমটি রাইটিং টাস্ক-১ হিসেবে পরিচিত। সাধারণত রাইটিং এর এই অংশে ৬ প্রকারের লেখা আসতে পারে।

[alert style=”danger”]১। লাইন গ্রাফ (Line Graph):[/alert]

লাইন গ্রাফের সাথে আমরা সবাই কমবেশি পরিচিত। সাধারণত কোন ঘটনা সময়ের সাথে কিভাবে পরিবর্তিত হচ্ছে তা লাইন গ্রাফের সাহায্যে উপস্থাপিত হতে পারে। আয়েল্টস পরীক্ষার কেমন লাইন গ্রাফ আসতে পারে কিছু নমুনা দেখা যাক:

1

2
3
4
5
6

 

[alert style=”danger”]২। বার চার্ট (Bar Chart/Graph):[/alert]

সাধারণত একের অধিক কোন কিছুর মধ্যে তুলনা করার জন্য বার চার্ট বা গ্রাফ বা ডায়াগ্রাম ব্যবহার করা হয়। কিছু নমুনা বার চার্ট:

1

2
3
4
5
6

 

[alert style=”danger”]৩। পাই চার্ট (Pie Chart/Diagram): [/alert]

সাধারণভাবে বাজেট বা কোন পপুলেশনের কতো শতাংশ আলাদাভাবে আলাদা বিষয়ের জরিত তা বুঝানোর জন্য পাই চার্টের সাহায্য নেওয়া হয়। আয়েল্টস পরীক্ষায় যে ধরণের পাই চার্ট আসতে পারে তার কিছু নমুনা দেখা যাক:

1

2
3
4

 

[alert style=”danger”]৪। টেবিল (Table): [/alert]

টেবিলের মধ্যে উপাত্ত উপস্থাপন করা থাকবে। আয়েল্টস পরীক্ষায় সাধারণত যে ধরণের টেবিল ধরণের রাইটিং থাকতে পারে তার কিছু নমুনা দেখা যাক:

1
2

 

[alert style=”danger”]৫। বিভিন্ন ডায়াগ্রামের মধ্যে তুলনা/বর্ণনা (Comparison/Description of Diagram): [/alert]

কোন শহরের প্রাচীন ম্যাপের সাথে নতুন ম্যাপের ছবি জুড়ে দিয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় আলোচনা করতে বলবে । এ ধরণের রাইটিং এর কিছু নমুনা দেখা যাক:

1

2

3

4

 

[alert style=”danger”]৬। প্রসেস ফ্লো-চার্ট (Process Flow Chart): [/alert]

কাঠ থেকে কিভাবে কাগজ উৎপাদন হচ্ছে, চিনি থেকে কিভাবে চকলেট বানানো হচ্ছে- ইত্যাদি কিছু সচিত্র প্রতিবেদন তুলে দেওয়া হবে। এবং আপনার কাজ হবে সেই ছবি ও তথ্য দেখে বিবরণ লেখা। এ ধরণের রাইটিং এ দুই ধরণের প্রসেস থাকতে পারে-

(ক). চক্রাকার প্রসেস (Continuous Process)
(খ). একমুখী প্রসেস (Discontinuous Process).

কিছু নমুনা দেখা যাক:

1

2

3

4

 

[alert style=”danger”]কিছু ব্যতিক্রম:[/alert]

অনেক সময় শুধুমাত্র একক ধরণের চিত্র না দিয়ে দুই বা তিনটি ধরণের চার্ট এক সাথে দিয়ে তাদের মধ্যে তুলনা করতে বলতে পারে। এগুলোর জন্য কিছু স্যাম্পল দেখা যাক:

1

2

3