[alert style=”success”]জিআরই রেজিস্ট্রেশন করা শেষ। সামনেই পরীক্ষা। কিন্তু এই মুহুর্তে হতে পারে আপনি গুরুতর অসুস্থ। অথবা সময়ের সাথে পাল্লা দিতে না পেরে আপনার প্রস্তুতি শেষ করতে পারেননি। মনে মনে হয়তো ভাবছেন কিভাবে এইবারের জন্য পরীক্ষা থেকে দূরে থাকা যায়।[/alert]

ঠিক এ সময়েই অনেকে ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন। কোন কিছু না ভেবে জিআরই পরীক্ষা বাতিল (Cancel) করার জন্য মনস্থির করেন।

যদিও আপাত দৃষ্টিতে মনে হতে পারে পরীক্ষা বাতিল করলে রেজিস্ট্রেশনে আপনি যে পরিমাণ টাকা পরিশোধ করেছেন তার ৫০ শতাংশ ফেরত পাবেন। হ্যাঁ, আপনার অনুমান যথার্থ। কিন্তু কতোটা যথার্থ তা জানার জন্য আপনাকে নিচের গল্পটি মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে।

যেমন- হঠাৎ অসুস্থ হওয়ায় মিস্টার জামাল পরীক্ষার চারদিন আগে পরীক্ষা বাতিল (Cancel) করার সিদ্ধান্ত নিলেন। সকালে সিদ্ধান্ত নিয়ে বিকেলেই তিনি Cancel করলেন। ইটিএস তার রেজিস্ট্রেশন থেকে ৫০ শতাংশ টাকা (৯৭.৫ ডলার) কেটে নিয়ে বাকি ৫০ শতাংশ বা ৯৭.৫ ডলার তার ক্রেডিট কার্ডে ফেরত দিয়ে দিলো। সুস্থ হয়ে তিনি পুনরায় জিআরই পরীক্ষা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। আবার জিআরই রেজিস্ট্রেশন করার জন্য তাকে ১৯৫ ডলার খরচ করতে হলো। শুরু থেকে একটু হিসেব কষলে দেখা যাবে ক্যানসেল করতে তার লোকসান হয়েছে ৯৭.৫ ডলার। আবার রেজিস্ট্রেশন করতে লেগেছে ১৯৫ ডলার। সর্বমোট (১৯৫+৯৭.৫) বা ২৯২.৫ ডলার।

অন্যদিকে মিস্টার কামালও অসুস্থতা জনিত কারনে পরীক্ষা দিতে পারবেন না। কিন্তু তার অদম্য ইচ্ছা পরীক্ষা দিবেনই। পরীক্ষা বাতিল (Cancel) না করে তারিখ পেছানো বা Reschedule করার সিদ্ধান্ত নেন। এ কাজের জন্য তার খরচ হবে সর্ব সাকুল্যে ৫০ ডলার।

এখন যদি মিস্টার জামাল এবং মিস্টার কামালের তুলনামূলক পর্যালোচনা করা যাক:

Screenshot_1

তার মানে দাঁড়াচ্ছে, জিআরই Reschedule করার চেয়ে Cancel করলে আপনার লাভের চেয়ে লোকসানের পরিমাণ অনেক বেশি।

টোফেল পরীক্ষার জন্য অনুরূপ কৌশল অবলম্বন করা শ্রেয়।

প্রোমেট্রিক টেস্ট সেন্টারে (যেমন-AAA) ৬ মাস পর্যন্ত আগাম তারিখ উন্মুক্ত থাকে। অন্যদিকে নন-প্রোমেট্রিক টেস্ট সেন্টারে (যেমন-DNS Software, Aamra Management ইত্যাদি) ৩ মাস পর্যন্ত আগাম তারিখ উন্মুক্ত থাকে।